ঢাকা ১০:২১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে অসত্য ও বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য অপপ্রচারে

কচুয়ায় দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির প্রেস ব্রিফিং

কচুয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রতি নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে উদ্ভট, অসত্য ও বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য অপপ্রচারের ঘটনায় প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।

Model Hospital

বুধবার (২৭ ডিসেম্বের) সকালে বিদ্যালয় অফিস কক্ষে পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো. আবু বকর মজুমদার উজ্জল লিখিত বক্তব্য বলেন, গত ৬ ডিসেম্বর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারি প্রধান শিক্ষকের শূণ্যপদে নিয়োগ পরীক্ষার দিন ধার্য্য করা হয় এবং পরীক্ষার স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার জন্য অপ্রতিকর ঘটনা এড়াতে পরিচালনা পর্ষদের সিদ্বান্ত মোতাবেক জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার পরামর্শক্রমে উপজেলা সংলগ্ন শহীদ স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়োগ পরীক্ষার স্থান নির্ধারণ করা হয়।

বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎসাহী সদস্য গাজী মাহবুব উল্যাহসহ কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহল ওই দুইটি পদে তাদের পছন্দের প্রার্থীদের নিয়োগ পাইয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে তা বাস্তাবায়ন করতে না পেরে এবং পরীক্ষার ভেনু নিয়ে, অনিয়মের অভিযোগ তুলে চাঁদপুর জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করার ফলে নিয়োগ পরীক্ষাটি স্থগিত হয়ে যায়।

ওই কুচক্রী মহল সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ব্যবহার করে মনগড়া অবাস্তব, উদ্ভট, অসত্য ও বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য প্রচার করে দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুন্ন করে। তাছাড়া ৮নং কাদলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মো. আজিজ উল্যাহ সহ ওই কুচক্রী মহলের যোগসাজসে নিয়োগের পরীক্ষাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ফেইজবুক লাইভে এসে আমার এবং প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালায়।

তিনি আরো বলেন, এই প্রতিষ্ঠানটি ধ্বংস ও অকার্যকর করার লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে বহিরাগতদের নেতৃত্বে স্থানীয় কিছু সংখ্যক দুষ্ট লোকের সহযোগীতায় ষড়যন্ত্র করে আসছে। ফলে বিদ্যালয়ের দু’টি গুরুত্বপূর্ণ পদ শূণ্য থাকায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। আমি দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও পরিচালনা পর্ষদের পক্ষ থেকে বিদ্যালয়ের স্বার্থ বিরোধী ও ভিত্তিহীন তথ্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি ও প্রতিষ্ঠানটির সুনাম পূনরুদ্ধারের জন্য প্রশাসন, সংশ্লিষ্ট দপ্তর, প্রাত্তন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সহযোগিতা কামনা করছি।

এসময় বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ আবদুচ ছোবহান, সহকারি শিক্ষক মোঃ সেলিম, রূপালী রানী মন্ডল, অভিভাবক সদস্য মোঃ নাছির, জিল্লুর রহমান, মনির হোসেন।

সমাজ সেবক ফারুক মজুমদার, খোরশেদ মজুমদার, আবুল বাশার, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম, আহসান উল্লাহ্ , নাবিল মজুমদার, সবুজ বকাউল প্রমুখ।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে অটো চালকের মৃত্যু

নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে অসত্য ও বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য অপপ্রচারে

কচুয়ায় দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির প্রেস ব্রিফিং

আপডেট সময় : ০৯:৩৩:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩

কচুয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্প্রতি নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে উদ্ভট, অসত্য ও বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য অপপ্রচারের ঘটনায় প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।

Model Hospital

বুধবার (২৭ ডিসেম্বের) সকালে বিদ্যালয় অফিস কক্ষে পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো. আবু বকর মজুমদার উজ্জল লিখিত বক্তব্য বলেন, গত ৬ ডিসেম্বর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারি প্রধান শিক্ষকের শূণ্যপদে নিয়োগ পরীক্ষার দিন ধার্য্য করা হয় এবং পরীক্ষার স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার জন্য অপ্রতিকর ঘটনা এড়াতে পরিচালনা পর্ষদের সিদ্বান্ত মোতাবেক জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার পরামর্শক্রমে উপজেলা সংলগ্ন শহীদ স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়োগ পরীক্ষার স্থান নির্ধারণ করা হয়।

বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎসাহী সদস্য গাজী মাহবুব উল্যাহসহ কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহল ওই দুইটি পদে তাদের পছন্দের প্রার্থীদের নিয়োগ পাইয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে তা বাস্তাবায়ন করতে না পেরে এবং পরীক্ষার ভেনু নিয়ে, অনিয়মের অভিযোগ তুলে চাঁদপুর জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করার ফলে নিয়োগ পরীক্ষাটি স্থগিত হয়ে যায়।

ওই কুচক্রী মহল সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ব্যবহার করে মনগড়া অবাস্তব, উদ্ভট, অসত্য ও বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য প্রচার করে দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুন্ন করে। তাছাড়া ৮নং কাদলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মো. আজিজ উল্যাহ সহ ওই কুচক্রী মহলের যোগসাজসে নিয়োগের পরীক্ষাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ফেইজবুক লাইভে এসে আমার এবং প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালায়।

তিনি আরো বলেন, এই প্রতিষ্ঠানটি ধ্বংস ও অকার্যকর করার লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে বহিরাগতদের নেতৃত্বে স্থানীয় কিছু সংখ্যক দুষ্ট লোকের সহযোগীতায় ষড়যন্ত্র করে আসছে। ফলে বিদ্যালয়ের দু’টি গুরুত্বপূর্ণ পদ শূণ্য থাকায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। আমি দরবেশগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও পরিচালনা পর্ষদের পক্ষ থেকে বিদ্যালয়ের স্বার্থ বিরোধী ও ভিত্তিহীন তথ্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি ও প্রতিষ্ঠানটির সুনাম পূনরুদ্ধারের জন্য প্রশাসন, সংশ্লিষ্ট দপ্তর, প্রাত্তন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সহযোগিতা কামনা করছি।

এসময় বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ আবদুচ ছোবহান, সহকারি শিক্ষক মোঃ সেলিম, রূপালী রানী মন্ডল, অভিভাবক সদস্য মোঃ নাছির, জিল্লুর রহমান, মনির হোসেন।

সমাজ সেবক ফারুক মজুমদার, খোরশেদ মজুমদার, আবুল বাশার, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম, আহসান উল্লাহ্ , নাবিল মজুমদার, সবুজ বকাউল প্রমুখ।