ঢাকা ০৩:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জে প্রথমবারের মতো ওয়াফেল নিয়ে এসেছে দুই উদ্যোক্তা

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে প্রথমবারের মতো ওয়াফেল নিয়ে এসেছে নারী উদ্যোক্তা মুসকান নূর ও মোঃ আল আমিন।
বুধবার (১০ এপ্রিল) রাতে হাজীগঞ্জ স্টেশন রোডে ওয়াফেল বেস্ট নামে প্রতিষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করা হয়।
অনুষ্ঠানে ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানটির স্বত্ত্বাধিকারী নারী উদ্যোক্তা মুসকান নূরে বাবা হাজী মো. সেলিম পাটোয়ারী, হাজীগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও হাজীগঞ্জ ই-কমার্সের এডমিন সাইফুল ইসলাম সিফাত, নিজের বলার মত একটা গল্প ফাউন্ডেশনের মডারেটর মেজবাহ আহমেদ, সাংবাদিক মজিবুর রহমান রনি, গাজী মহিন উদ্দিন, মুসকান নুরের ভাই আরমান হোসেন নিলয়, রাকিব হোসেন সৌরভ, ফরহাদ হোসেন হৃদয়, নারী উদ্যোক্তা ফারিয়া আলম বৃষ্টি, শিউলী আক্তার, ফাতেমা আক্তার রিমি, রুপু, আসমা আবিদ, আখি আহমেদ প্রমূখ।
প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা যায়, পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন ও বিশেষ কোন উৎসবে এখানে দুইটি ওয়াফেল অর্ডার করলে একটি ওয়াফেল ফ্রি থাকবে। যার মূল্য রাখা হয়েছে প্রতিটি ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে ২৫০ টাকা পর্যন্ত।
বিভিন্ন ফ্লেভারের এই সু স্বাদু খাবারটি রাজধানী ঢাকা সহ বিভিন্ন দেশে এর জনপ্রিয়তা রয়েছে বেশ। তাই হাজীগঞ্জের ওয়াফেল প্রেমীদের চাহিদা মেটাতে “ওয়াফেল বেস্ট” নামে প্রতিষ্ঠানটির শুভ সূচনা ঘটে।
উদ্বোধনকালে কয়েকজন ক্রেতা বলেন, হাজীগঞ্জের জন্য এ খাবারটি একদম নতুন। ভিন্ন স্বাদের এই খাবারটি পেয়ে ওয়াফেল প্রেমীরা সত্যিই আনন্দিত। তারা বলেন, আমরা ঢাকার বিভিন্ন বড় বড় রেস্টুরেন্টে খেয়েছি। তবে সু স্বাদু এই খাবারটি এখন আমাদের নিজ এলাকায়। আমরা প্রতিষ্ঠানটির দুই উদ্যোক্তাকে ধন্যবাদ জানাই।
এদিকে ওয়াফেল বেস্ট প্রতিষ্ঠানটির একজন স্বত্বাধিকারী মুসকান নূর বলেন, নতুন প্রজন্মের জন্য এটি একটি নতুন খাবার। স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্য এই খাবারটি খুবই জনপ্রিয়। আমি হাজীগঞ্জের জন্য ইউনিক কিছু করতে গিয়ে ওয়াফেল এর কথা মাথায় আসে। এখনো অনেকেই জানেন না এটা আসলে কি? মূলত বিদেশি এই খাবারটি সম্পর্কে আমাদের হাজীগঞ্জ বাসীকে পরিচয় করিয়ে দিতেই এই উদ্যোগ। স্বল্প মূল্যে ওয়াফলল এর স্বাদ নিতে “ওয়াফেল বেস্ট” এ আসার অনুরোধ করেন এই নারী উদ্যোক্তা।
ওয়াফেল ছাড়াও এখানে বিভিন্ন প্রকার ফাস্ট ফুড ও কোমল পানীয় ছাড়া অন্যান্য খাবার পাওয়া যাবে বলে জানা যায়।
ট্যাগস :

হাজীগঞ্জে প্রথমবারের মতো ওয়াফেল নিয়ে এসেছে দুই উদ্যোক্তা

আপডেট সময় : ০৯:৩৯:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০২৪
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে প্রথমবারের মতো ওয়াফেল নিয়ে এসেছে নারী উদ্যোক্তা মুসকান নূর ও মোঃ আল আমিন।
বুধবার (১০ এপ্রিল) রাতে হাজীগঞ্জ স্টেশন রোডে ওয়াফেল বেস্ট নামে প্রতিষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করা হয়।
অনুষ্ঠানে ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানটির স্বত্ত্বাধিকারী নারী উদ্যোক্তা মুসকান নূরে বাবা হাজী মো. সেলিম পাটোয়ারী, হাজীগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও হাজীগঞ্জ ই-কমার্সের এডমিন সাইফুল ইসলাম সিফাত, নিজের বলার মত একটা গল্প ফাউন্ডেশনের মডারেটর মেজবাহ আহমেদ, সাংবাদিক মজিবুর রহমান রনি, গাজী মহিন উদ্দিন, মুসকান নুরের ভাই আরমান হোসেন নিলয়, রাকিব হোসেন সৌরভ, ফরহাদ হোসেন হৃদয়, নারী উদ্যোক্তা ফারিয়া আলম বৃষ্টি, শিউলী আক্তার, ফাতেমা আক্তার রিমি, রুপু, আসমা আবিদ, আখি আহমেদ প্রমূখ।
প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা যায়, পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন ও বিশেষ কোন উৎসবে এখানে দুইটি ওয়াফেল অর্ডার করলে একটি ওয়াফেল ফ্রি থাকবে। যার মূল্য রাখা হয়েছে প্রতিটি ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে ২৫০ টাকা পর্যন্ত।
বিভিন্ন ফ্লেভারের এই সু স্বাদু খাবারটি রাজধানী ঢাকা সহ বিভিন্ন দেশে এর জনপ্রিয়তা রয়েছে বেশ। তাই হাজীগঞ্জের ওয়াফেল প্রেমীদের চাহিদা মেটাতে “ওয়াফেল বেস্ট” নামে প্রতিষ্ঠানটির শুভ সূচনা ঘটে।
উদ্বোধনকালে কয়েকজন ক্রেতা বলেন, হাজীগঞ্জের জন্য এ খাবারটি একদম নতুন। ভিন্ন স্বাদের এই খাবারটি পেয়ে ওয়াফেল প্রেমীরা সত্যিই আনন্দিত। তারা বলেন, আমরা ঢাকার বিভিন্ন বড় বড় রেস্টুরেন্টে খেয়েছি। তবে সু স্বাদু এই খাবারটি এখন আমাদের নিজ এলাকায়। আমরা প্রতিষ্ঠানটির দুই উদ্যোক্তাকে ধন্যবাদ জানাই।
এদিকে ওয়াফেল বেস্ট প্রতিষ্ঠানটির একজন স্বত্বাধিকারী মুসকান নূর বলেন, নতুন প্রজন্মের জন্য এটি একটি নতুন খাবার। স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্য এই খাবারটি খুবই জনপ্রিয়। আমি হাজীগঞ্জের জন্য ইউনিক কিছু করতে গিয়ে ওয়াফেল এর কথা মাথায় আসে। এখনো অনেকেই জানেন না এটা আসলে কি? মূলত বিদেশি এই খাবারটি সম্পর্কে আমাদের হাজীগঞ্জ বাসীকে পরিচয় করিয়ে দিতেই এই উদ্যোগ। স্বল্প মূল্যে ওয়াফলল এর স্বাদ নিতে “ওয়াফেল বেস্ট” এ আসার অনুরোধ করেন এই নারী উদ্যোক্তা।
ওয়াফেল ছাড়াও এখানে বিভিন্ন প্রকার ফাস্ট ফুড ও কোমল পানীয় ছাড়া অন্যান্য খাবার পাওয়া যাবে বলে জানা যায়।