ঢাকা ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে মহিলা ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে ফেরাতে প্রশাসনের আহ্বান

ফরিদগঞ্জে উদ্বুদ্ধকরণ সভায় বক্তব্য রাখছেন অঞ্জনা খান মজলিশ।

অযোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হলে তার দায় নারীরাও এড়াতে পারবে না : ডিসি অঞ্জনা খান মজলিশ

Model Hospital

এস এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ উপজেলার রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারী ভোটারদের ভোট প্রদানে আগ্রহী করতে উদ্বুদ্ধকরণ সভা করেছে উপজেলা প্রশাসন।

১ জানুয়ারী শনিবার সকালে গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত কলেজ মিলনায়তনে মহিলাদের ভোট কেন্দ্রে প্রেরন করার লক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরি’র সভাপতিত্বে ও সহকারী প্রথমিক শিক্ষা অফিসার বেলায়েত হোসেনের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। সভায় কোরআন ও হাদীসের আলোকে নারীদের ভোট প্রদানের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেন উপজেলা কমপ্লেক্স জামে মসজিদের খতিব মাওলানা ইউনুস হোসেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, পত্রিকার মাধ্যমে আমি জানতে পেরেছি ফরিদগঞ্জ উপজেলার রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারীরা গত পঞ্চাশ বছরেও ভোট দেননা। আমি গভীরভাবে বিশ^াস করি কোন আলেম নারীদেরকে ভোট প্রদান থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেন না। পর্দা রক্ষা করে নারীদের ভোট প্রদান ধর্মের সাথে সাংঘর্ষিক নয়। নারীরা ভোট প্রদান থেকে বিরত থাকলে যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে বিরুপ প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা থাকে। অযোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হলে ধর্মীয়ভাবে নারীরাও দায় এড়াতে পারবেনা। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নারীদেরকে ভোট প্রদান করতে হবে। কোন পীর শুধু মাত্র ভোট দেওয়ার বিষয়ে নিষেধ করেছেন তা কিন্তু সঠিক নয়। আমি বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছি পীর বলেছেন নারীরা পর্দা করে চলার জন্য। কিন্তু কিছু মানুষ পীরের এই কথাটিকে বিকৃত করে লোক মূখে প্রচার করে আসছে মহিলা ভোট দিলে এলাকায় নানা বিধি রোগ বালাই চড়াবে। এই কথাটি গত ৫০ বছরে এই এলাকার নারীদের ভোট প্রয়োগে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা আপনাদের আস্বস্থ করতে পারি, আপনারা নিজেদের পচন্দের ব্যক্তিকে আগামি ৫ জানুয়ারী ভোট দিয়ে কুসংস্কার প্রথা চিরতরে বন্ধ করবেন। ইসলামে নারীদের ধর্মীয় নিয়ম মেনে সকল কাজ করতে বলা হয়েছে।আপনাদের এই উপজেলায় দু’জন নারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে এছাড়াও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক এবং প্রতিটি ক্ষেত্রেই পুরুষের পাশাপাশি সমান ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ পিপিএম বলেন, ইসলামের কোথায়ও বলা নেই নারীদের শুধুমাত্র ভোট প্রধানে নিষেধ রয়েছে। পর্দার মধ্যে থেকে কাজ করা ইসলাম নিষেধ করে নাই। উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে একাধিক পীর রয়েছে, সে ইউনিয়ন গুলোতে নারীরা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছে। শুধুমাত্র এই ইউনিয়নের ৯ হাজারেরও বেশি নারী ভোটাররা তাদের ভোট দেননা বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক। আপনারা যদি চান পুলিশ পাহারায় আপনাদের বাড়ি থেকে ভোট কেন্দ্রে এনে ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।

এসময় বক্তব্য রাখেন ফরিদগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন, ইউপি চেয়াম্যান ইস্কান্দার আলী, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজিজুন্নাহার, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মনির চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আব্দুস ছোবহান লিটন প্রমূখ।

উল্লেখ্য ফরিদগঞ্জ উপজেলার রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নে নারীরা গত পঞ্চাশ বছর সকল নির্বাচনে ভোট প্রদান থেকে বিরত রয়েছেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুর শহরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালো অ্যাড. হুমায়ুন কবির সুমন

ফরিদগঞ্জে মহিলা ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে ফেরাতে প্রশাসনের আহ্বান

আপডেট সময় : ১২:০৭:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জানুয়ারী ২০২২

অযোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হলে তার দায় নারীরাও এড়াতে পারবে না : ডিসি অঞ্জনা খান মজলিশ

Model Hospital

এস এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জ উপজেলার রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারী ভোটারদের ভোট প্রদানে আগ্রহী করতে উদ্বুদ্ধকরণ সভা করেছে উপজেলা প্রশাসন।

১ জানুয়ারী শনিবার সকালে গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত কলেজ মিলনায়তনে মহিলাদের ভোট কেন্দ্রে প্রেরন করার লক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরি’র সভাপতিত্বে ও সহকারী প্রথমিক শিক্ষা অফিসার বেলায়েত হোসেনের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। সভায় কোরআন ও হাদীসের আলোকে নারীদের ভোট প্রদানের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেন উপজেলা কমপ্লেক্স জামে মসজিদের খতিব মাওলানা ইউনুস হোসেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, পত্রিকার মাধ্যমে আমি জানতে পেরেছি ফরিদগঞ্জ উপজেলার রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারীরা গত পঞ্চাশ বছরেও ভোট দেননা। আমি গভীরভাবে বিশ^াস করি কোন আলেম নারীদেরকে ভোট প্রদান থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেন না। পর্দা রক্ষা করে নারীদের ভোট প্রদান ধর্মের সাথে সাংঘর্ষিক নয়। নারীরা ভোট প্রদান থেকে বিরত থাকলে যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে বিরুপ প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা থাকে। অযোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হলে ধর্মীয়ভাবে নারীরাও দায় এড়াতে পারবেনা। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নারীদেরকে ভোট প্রদান করতে হবে। কোন পীর শুধু মাত্র ভোট দেওয়ার বিষয়ে নিষেধ করেছেন তা কিন্তু সঠিক নয়। আমি বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছি পীর বলেছেন নারীরা পর্দা করে চলার জন্য। কিন্তু কিছু মানুষ পীরের এই কথাটিকে বিকৃত করে লোক মূখে প্রচার করে আসছে মহিলা ভোট দিলে এলাকায় নানা বিধি রোগ বালাই চড়াবে। এই কথাটি গত ৫০ বছরে এই এলাকার নারীদের ভোট প্রয়োগে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা আপনাদের আস্বস্থ করতে পারি, আপনারা নিজেদের পচন্দের ব্যক্তিকে আগামি ৫ জানুয়ারী ভোট দিয়ে কুসংস্কার প্রথা চিরতরে বন্ধ করবেন। ইসলামে নারীদের ধর্মীয় নিয়ম মেনে সকল কাজ করতে বলা হয়েছে।আপনাদের এই উপজেলায় দু’জন নারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে এছাড়াও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক এবং প্রতিটি ক্ষেত্রেই পুরুষের পাশাপাশি সমান ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ পিপিএম বলেন, ইসলামের কোথায়ও বলা নেই নারীদের শুধুমাত্র ভোট প্রধানে নিষেধ রয়েছে। পর্দার মধ্যে থেকে কাজ করা ইসলাম নিষেধ করে নাই। উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে একাধিক পীর রয়েছে, সে ইউনিয়ন গুলোতে নারীরা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছে। শুধুমাত্র এই ইউনিয়নের ৯ হাজারেরও বেশি নারী ভোটাররা তাদের ভোট দেননা বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক। আপনারা যদি চান পুলিশ পাহারায় আপনাদের বাড়ি থেকে ভোট কেন্দ্রে এনে ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।

এসময় বক্তব্য রাখেন ফরিদগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদ হোসেন, ইউপি চেয়াম্যান ইস্কান্দার আলী, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজিজুন্নাহার, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মনির চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আব্দুস ছোবহান লিটন প্রমূখ।

উল্লেখ্য ফরিদগঞ্জ উপজেলার রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নে নারীরা গত পঞ্চাশ বছর সকল নির্বাচনে ভোট প্রদান থেকে বিরত রয়েছেন।