ঢাকা ০৬:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাউছিয়া ছোবহানিয়া আলিম মাদ্রাসার সভাপতি আমান উল্লাহ

চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলা ৯নং কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুমুরিয়া গাউছিয়া ছোবহানিয়া আলিম মাদ্রাসার গভর্ণিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হয়েছেন উপজেলার তরুন সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ।
বুধবার (২৬জুন) বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুহাম্মদ শাহ আলমগীরের নির্দেশনায় উপ-রেজিস্ট্রার (প্রশাসন) মো: ওমর ফারুকের সাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বিষয়টি গণমাধ্যমে জানানো হয়।
মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের (গর্ভণিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি) প্রবিধানমালা-২০০৯ সংশ্লিষ্ট প্রবিধান অনুসারে সভাপতিসহ ১২ সদস্যের কমিটি প্রথম সভা থেকে ২ বছরের জন্য ঘোষণা করা হয়।
তরুন সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে এলাকার সামাজিক কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন। তিনি একজন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তা। স্থানীয় মানব সেবার পাশাপাশি জাতীয় ভাবে তরুনদের আইকন হিসেবে ব্যাপক ভাবে সুপরিচিত।
সভাপতি হিসেবে প্রজ্ঞাপন পাওয়ার পর আমান উল্লাহ বলেন, জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখার পর স্থানীয় মানুষের শিক্ষা উন্নয়নে অবদান রাখতেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত হওয়া। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ এমপি স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞ যিঁনি এই সুযোগটি করে দিয়েছেন। আমার অর্জিত অভিজ্ঞতা ও শিক্ষকদের জ্ঞানের সমন্বয়ে স্থানীয় শিক্ষানুরাগীদের সহযোগিতায় মাদ্রাসাটিকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

স্কুলের শ্রেণিকক্ষে ‘আপত্তিকর’ অবস্থায় ছাত্রীসহ প্রধান শিক্ষক আটক

গাউছিয়া ছোবহানিয়া আলিম মাদ্রাসার সভাপতি আমান উল্লাহ

আপডেট সময় : ০১:১৫:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ জুন ২০২৪
চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলা ৯নং কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুমুরিয়া গাউছিয়া ছোবহানিয়া আলিম মাদ্রাসার গভর্ণিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হয়েছেন উপজেলার তরুন সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ।
বুধবার (২৬জুন) বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুহাম্মদ শাহ আলমগীরের নির্দেশনায় উপ-রেজিস্ট্রার (প্রশাসন) মো: ওমর ফারুকের সাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বিষয়টি গণমাধ্যমে জানানো হয়।
মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের (গর্ভণিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি) প্রবিধানমালা-২০০৯ সংশ্লিষ্ট প্রবিধান অনুসারে সভাপতিসহ ১২ সদস্যের কমিটি প্রথম সভা থেকে ২ বছরের জন্য ঘোষণা করা হয়।
তরুন সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমান উল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে এলাকার সামাজিক কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন। তিনি একজন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তা। স্থানীয় মানব সেবার পাশাপাশি জাতীয় ভাবে তরুনদের আইকন হিসেবে ব্যাপক ভাবে সুপরিচিত।
সভাপতি হিসেবে প্রজ্ঞাপন পাওয়ার পর আমান উল্লাহ বলেন, জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখার পর স্থানীয় মানুষের শিক্ষা উন্নয়নে অবদান রাখতেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত হওয়া। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ এমপি স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞ যিঁনি এই সুযোগটি করে দিয়েছেন। আমার অর্জিত অভিজ্ঞতা ও শিক্ষকদের জ্ঞানের সমন্বয়ে স্থানীয় শিক্ষানুরাগীদের সহযোগিতায় মাদ্রাসাটিকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।